web stats হ্যাঁ আমি চা বিক্রি করতাম কিন্তু দেশ তো বিক্রি করিনি: মোদি

বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৯ আশ্বিন ১৪২৭

হ্যাঁ আমি চা বিক্রি করতাম কিন্তু দেশ তো বিক্রি করিনি: মোদি

প্রথম দফার ভোটের বাকি আর মাত্র ১০ দিন। নির্বাচনী প্রচারে এত দিন শাসক-বিরোধী- দু’পক্ষের বিষয়ই ছিল শুধু গুজরাত অস্মিতা। কিন্তু, ময়দানে নেমেই নরেন্দ্র মোদি জাতীয়তাবাদের দামামাটা বাজিয়ে দিলেন।

এ বারের গুজরাত নির্বাচনে প্রথম প্রচারে তিনি তার অতীত নিয়ে করা বিরোধীদের কটাক্ষের জবাবে বলেন, হ্যাঁ আমি বাবার সাথে স্টেশনে চা বিক্রি করতাম কিন্তু ওদের মতো দেশ বিক্রি করিনি। এসময় তিনি তুলে ধরেন পাকিস্তানে ঢুকে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক প্রসঙ্গ।

সোমবার সকালে গুজরাতের কচ্ছের ‘আশাপুরা মাতা’ মন্দিরে পুজো দিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রচার অভিযান শুরু করেন। আগামী ৯ এবং ১৪ ডিসেম্বর গুজরাতে বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে আগামী দু’সপ্তাহে তিনি ৩০-টিরও বেশি নির্বাচনী সভা করবেন বলে বিজেপি সূত্রে খবর।

এ দিন মোদী ভুজ ছাড়াও আরও দু’টি জায়গায় মোদির নির্বাচনী সভা আছে। তার একটি সৌরাষ্ট্রে এবং অন্য দক্ষিণ গুজরাতে। এ দিন মোদির ভুজের জনসভায় বিপুল জনসমাগম হয়। সেখানে তিনি মুম্বাই এবং উরি হামলা প্রসঙ্গ তুলে ধরেন।

প্রধানমন্ত্রীর কথায়, ”২৬/১১-য় এবং উরিতে ভারতের উপর হামলা চালানো হয়েছিল। আপনারা দেখেছেন দু’টি ক্ষেত্রে ভারত কী ভাবে তার জবাব দিয়েছে। আর সেটাই বুঝিয়ে দেয়, ওদের সরকার এবং আমাদের সরকারের পার্থক্য।” উচ্চারণ না করেও মোদি মনে করিয়ে দিতে চেয়েছেন পাকিস্তানে ঢুকে ভারতীয় সেনার সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের কথা।

আসলে, মোদি জবাবটা দিতে চেয়েছেন রাহুল গাঁন্ধীকে। কারণটা অবশ্যই মুম্বাই হামলার মাস্টারমাইন্ড হাফিজ সাঈদ। চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি হাফিজকে গৃহবন্দি করেছিল পাক সরকার। গত বুধবার তাকে মুক্তি দিয়েছে লাহৌর হাইকোর্টের বিচারবিভাগীয় বোর্ড।

শুক্রবার লাহৌরের বাড়ি থেকে বাইরে পা দিয়েছেন এই জঙ্গি নেতা। তারপরেই রাহুল গাঁন্ধী টুইট করে ব্যঙ্গ করেন, ”নরেন্দ্র ভাই বাত নেহি বনি। টেরর মাস্টারমাইন্ড এখন ফ্রি। ‘হাগপ্লোম্যাসি’ ফেল করল। আরও আলিঙ্গনের প্রয়োজন রয়েছে।”

এ দিন মোদি এই বার্তারই জবাব দিয়েছেন বলে রাজনৈতিক মহলের দাবি। পাশাপাশি, তিনি ভারতে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে রাহুলের দেখা করা নিয়েও কটাক্ষ করেছেন। ভুজের জনসভায় মোদি গুজরাতি ভাষাতেই ভাষণ দিচ্ছিলেন। সেই ভাষণই ইংরেজি তর্জমা করে তার টুইটার হ্যান্ডলে পোস্ট করা হচ্ছিল।

সেখানে মোদি বলেন, ”পাকিস্তানি আদালত এক জঙ্গিকে মুক্তি দিয়েছে, আর কংগ্রেস তা উদ্যাপন করছে। অবাক হয়েছিলাম কেন! এই কংগ্রেসেই তো সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে আমাদের সেনার উপর বিশ্বাস রাখতে চায়নি। বরং তার থেকে বেশি বিশ্বাস করতে চেয়েছিল চীনের রাষ্ট্রদূতের উপর।”

এই বিভাগের আরো খবর


WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com