web stats রিফাতের স্ত্রী মিন্নির নিরাপত্তায় বাড়িতে পুলিশ পাহারা

শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬

রিফাতের স্ত্রী মিন্নির নিরাপত্তায় বাড়িতে পুলিশ পাহারা

বরগুনায় প্রকাশ্যে দিবালোকে নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার শাহ নেয়াজ রিফাত ফরাজির শ্বশুরবাড়িতে পুলিশ প্রহরা বসানো হয়েছে। নিহতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ তার পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য অস্ত্রধারী চার পুলিশ সদস্যকে মিন্নির বাড়িতে মোতায়েন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে ওই বাড়িতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে বরগুনা জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত মূল তিন আসামি সাব্বির হোসেন নয়ন ওরফে নয়ন বন্ড ও রিফাত ফরাজী ও রিশান ফরাজীকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। তবে মামলার এজাহারভুক্ত অন্য দুই আসামিসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এ বিষয়ে মিন্নির চাচা মো. আবু সালেহ জানান, রিফাত শরীফ মারা যাওয়ার পর থেকেই আমার ভাই ও তার পরিবারের সদস্যরা হুমকির সম্মুখীন হয়। এ কারণে নিরাপত্তা চাওয়া হলে মিন্নিদের বাড়িতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

মিন্নি ও তার স্বজনদের নিরাপত্তায় দায়িত্বরত উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. কামাল হোসেন জানান, গতকাল সন্ধ্যা থেকে আজ সকাল পর্যন্ত পুলিশের একটি টিম মিন্নি ও তার স্বজনদের নিরাপত্তার দায়িত্বে মোতায়েন ছিলেন। সকাল হওয়ার পর সেই টিমটি চলে যায় এবং আমিসহ তিন অস্ত্রধারী কনস্টেবল মিন্নি ও তার স্বজনদের নিরাপত্তায় এই বাড়িতে নিয়োজিত রয়েছি।

এর আগে বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে শত শত লোকের উপস্থিতিতে স্ত্রীর সামনে শাহ নেয়াজ রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। নিহত রিফাত শরীফের বাড়ি বরগুনা সদর উপজেলার ৬নং বুড়িরচর ইউনিয়নের বড় লবণগোলা গ্রামে। তার বাবার নাম আ. হালিম দুলাল শরীফ। মা-বাবার একমাত্র সন্তান ছিলেন রিফাত।

ওই দিন সকাল ১০টার দিকে নয়নের নেতৃত্বে ৪-৫ জন সন্ত্রাসী রিফাতকে দা দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় ফেলে যায়। এ সময় বারবার সন্ত্রাসীদের হাত থেকে স্বামীকে বাঁচাতে আপ্রাণ চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি।

পরে রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বৃহস্পতিবার সকালে বরগুনা থানায় এসে একটি হত্যামামলা করেন। তাতে ১২ জনকে আসামি করা হয়।

আসামিদের মধ্যে চন্দন নামের একজনকে আগের রাতেই জেলা শহর থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে সদর থানার ওসি আবীর হোসেন জানান।

বৃহস্পতিবার তিনি এজাহারভুক্ত আরেক আসামি হাসান এবং সন্দেহভাজন নাজমুল হাসানকে গ্রেপ্তারের খবর জানান।

এদিকে বরগুনার সরকারি কলেজের ডিগ্রি প্রথম বর্ষের ছাত্রী মিন্নি হামলাকারী সবাইকে চিনতে না পারার কথা জানালেও নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজী ও রিশান ফরাজীর নাম বলেছেন।

এই বিভাগের আরো খবর


WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com