web stats বনভোজন থেকে ছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ, জানাজানির পর লজ্জায় আত্মহত্যা

শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বনভোজন থেকে ছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ, জানাজানির পর লজ্জায় আত্মহত্যা

বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলায় ধর্ষণের ঘটনা এলাকায় জানাজানি হওয়ায় লোকলজ্জা ও ক্ষোভে বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন ফারজানা আক্তার (১৭) নামের এক কলেজছাত্রী।

গত রোববার উপজেলার পূর্ব রবিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মৃত ওই তরুণী উপজেলার গারুড়িয়া ইউনিয়নের পূর্ব রবিপুর গ্রামের সালাম ফরাজীর মেয়ে এবং বাকেরগঞ্জ উপজেলার শিয়ালঘুনি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের দ্বিতীয়বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

ওই ছাত্রীর স্বজনরা জানান, ১২ জুন রাতে ওই ছাত্রীর বাড়ির পাশে বনভোজনের আয়োজন করা হয়। বনভোজনে তিনিও অংশ নেন। সেখানে কবাই এলাকার আব্দুল মতিনের ছেলে মো. রাজিবও অংশ নেন। রাতে রাজিব তার বন্ধুদের সহায়তায় ফারজানাকে তুলে নিয়ে প্রতিবেশীর ফাঁকা বাড়িতে ধর্ষণ করেন। এতে সহযোগিতা করেন রাজিবের বন্ধু একই এলাকার তরিকুল ইসলাম, শাওন গাজী, শাওন ফরাজী, রাসেদ ও জোবায়ের।

রাতভর ধর্ষণের পর সকালে বন্ধুদের সহায়তায় ওই ছাত্রীকে বাড়ির সামনে ফেলে যান তারা। ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হওয়ায় ওই দিনই ক্ষোভে-অপমানে বিষপান করেন ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী। এরপর অসুস্থ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল ভর্তি করেন স্বজনরা। ১৬ জুন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

মামলার বাদী ও নিহতের বাবা বলেন, ‘আমার মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনায় সোমবার বাকেরগঞ্জ থানায় একটি মামলা করি। তবে এখন পর্যন্ত একজনও গ্রেফতার হয়নি। ধর্ষক ও খুনিদের কঠোর শাস্তি চাই আমি।

এ বিষয়ে বরিশালের অতিরিক্ত এসপি আনোয়ার সাঈদ বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখছে পুলিশ। আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চালনো হচ্ছে। তবে ঘটনার পরই এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে আসামিরা। দ্রুত এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে।

এই বিভাগের আরো খবর


WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com