web stats 'বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে মৎস্যখাতের গুরুত্ব অপরিসীম'

শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে মৎস্যখাতের গুরুত্ব অপরিসীম’

নোমান সিকদার চরফ্যাসন: মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু বলেছেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে মৎস্য খাতের গুরুত্ব অপরিসীম। এ দেশের ক্রমবর্ধমান জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থান, খাদ্য নিরাপত্তা, পুষ্টি উন্নয়ন, দারিদ্র্য বিমোচনে এবং বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে মৎস্য খাতে অসামান্য অবদান রাখছে।

তাই মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে সবাইকে সচেতন করে গড়ে তুলতে হবে। মাছ আমাদের দেশের সম্পদ। বড় ইলিশ রপ্তানী করে সরকার পর্যপ্ত পরিমান টাকা আয় করে। যার ফলে দেশ অর্থনৈতিক ভাবে স্বাবলম্ভী হচ্ছে। তাই দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের স্বার্থে নিষিদ্ধ জাল দিয়ে মাছ ধরা বন্ধ করতে হবে।

আজ শনিবার দুপুর ১২টায় ভোলার চরফ্যাসন উপজেলার সামরাজ মৎস্য ঘাটে মৎস্য অধিদপ্তরের আয়োজনে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ’২০১৯-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ২০০৮-২০০৯ইং অর্থবছরে দেশে মাছের মোট উৎপাদন ছিলো ২৭.০১লক্ষ মেট্রিক টন। বর্তমান সরকারের বিভিন্ন কর্যক্রম বস্তবায়নের ফলে চলিত বছরে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়ে ৪২.৭৭ লক্ষ মেট্রিকটনে উন্নীত হয়েছে। মৎস্য অধিদপ্তরের উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষে বর্তমান আওযামীলীগ সরকার সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে। তাই নিষিদ্ধ সময়ে জাটকা সংরক্ষণ কারার জন্য কারেন্ট জালসহ সকল প্রকার নিষিদ্ধ জাল ব্যাবহার না করার জন্য জেলেদের প্রতি আহব্বান জানান তিনি। নিষিদ্ধ জাল উৎপাদন, পরিবহন, বিক্রি ও ব্যবহারে সব পক্ষকে বিরত রাখতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে কঠোর নজরধারী করার নির্দেশ দেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে যুব ও ক্রিড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাবেক উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপি বলেছেন, মাদ্রাজ ইউনিয়নের কয়েক লাখ মানুষের জীবনমান রক্ষায় ৮শ ৫০কোটি টাকা ব্যয়ে নদী ভাঙ্গনরোধ করা হয়েছে। মৎস্য ব্যাবসায়ীদের কথা বিবেচনা করে চরফ্যাসন সদর থেকে সামরাজ ঘাট পর্যান্ত বেড়িবাঁধ নির্মাণ ও ইহা পাকা করা হয়েছে। সামরাজ মৎস্যঘাট এখন আধুনিক মৎস্যঘাট হিসেব রুপান্তর করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ভোলা জেলা প্রসাশক মাসুদ আলম সিদ্দিক, ওয়াল্ড ফিস এর কান্ডি ডিরেক্টর ম্যালকন ডিকসন,মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবু সাইদ মোঃ রাশেদুল হক,ভোলা জেলা পুলিশ সুপার মো. মোক্তার হোসেন, ভোলা জেলা ক্ষুদ্রমৎস্যজীবি সমিতির সভাপতি আবুল বাসার প্রমুখ।

আলোচনা সভা শেষে মৎস্য ও প্রণীসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু ও ভোলা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব কয়েক শতাধিক মাছ ধরার ট্রলারে নিয়ে মেঘনা নদীতে একটি বর্ণাঢ্যর‌্যালি বের করেন।

এই বিভাগের আরো খবর