web stats নড়াইলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কুড়িরডোব মাঠে একুশের সন্ধ্যায় লাখো মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বলন

মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ৫ মাঘ ১৪২৭

নড়াইলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কুড়িরডোব মাঠে একুশের সন্ধ্যায় লাখো মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বলন

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি: নড়াইলে ভাষা শহীদদের স্মরণে জ্বললো লাখো মঙ্গল প্রদীপ। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে একুশের সন্ধ্যায় সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ খেলার মাঠে (কুরিডোব মাঠ) মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়। একুশের আলোর আয়োজনে ভাষা শহীদদের স্মরণে আজ বৃহস্পতিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় এ মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বলন করা হয়।

সূর্যাস্তের সাথে সাথে ২১শে’র সন্ধ্যায় এক লাখ মঙ্গল প্রদীপ ও মোমবাতি প্রজ্বলন। শহীদ মিনার, জাতীয় স্মৃতি সৌধ, বাংলা বর্ণমালা, আলপনাসহ গ্রাম বাংলার নানা ঐতিহ্য তুলে ধরে প্রদীপ প্রজ্বলনের মধ্য দিয়ে। সে সাথে ভাষা দিবসের ৬৮তম বার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ ৬৮টি ফানুস উড়ান। সন্ধ্যা ৬টায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের শিল্পীরা ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’ এই গান পরিবেশনের সাথে সাথে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বলনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করনে ভাষা সৈনিক রিজিয়া খানম।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নড়াইলের জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা, নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার) ও তাঁর সহধর্মিনী নাহিদা চৌধুরী সুমি, সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম, পিপিএম ও তাঁর সহধর্মিনী, নড়াইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ শরফুদ্দীন, নড়াইলের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক), নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ রবিউল ইসলাম, নড়াইল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা সেলিম, নড়াইল একুশের আলোর সদস্য সচিব ও নাট্য ব্যক্তিত্ব কচি খন্দকারসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বলন অনুষ্ঠানের সার্বিক নিরাপত্তা দিয়েছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার)। সঠিক নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম, পিপিএম ও নড়াইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ শরফুদ্দীন।

গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়, সাধারণ সম্পাদক মোঃ হিমেল মোল্যাসহ ক্লাবের সকল সদস্যবৃন্দসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ। নড়াইলের জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা তাঁর বক্তব্যে বলেন, ভাষা শহীদদের স্মরণে ১৯৯৮ সালে নড়াইলে এই ব্যতিক্রমী আয়োজন শুরু হয়। প্রথমবার নড়াইলের সুলতান ম সহ শহরের বিভিন্ন স্থানে প্রায় ১০ হাজার মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়। এরপর থেকে নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ খেলার মাঠে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে ভাষা শহীদদের স্মরণ করা হচ্ছে। প্রতিবছর এর ব্যপ্তি বেড়েছে।

প্রতি বছরের মতো এবারো নড়াইলবাসী, ঢাকাসহ নড়াইলের পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জেলা থেকে কয়েক হাজার দর্শনার্থী এ মনোরম দৃশ্য উপভোগ করেছেন বলে আশা করেন তিনি। এ সময় নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম (বার) বলেন, নড়াইলের এই ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজনে সমগ্র নড়াইল জেলাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে লোকজন আসে এই মোমবাতি প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠান উপভোগ করতে। কাজেই এ সকল দর্শনার্থীদের নিরাপত্তার ব্যাপারে নড়াইল জেলা পুলিশ ছিল সর্বদা সজাগ। এরই ধারাবাহিকতায় কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠভাবে এ অনুষ্ঠান সম্পাদন করা সম্ভব হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর


WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com