web stats কেঁদো না, তোমার জন্যই আমি বিশ্বকাপ জিতবো, তবু কেঁদো না বাবা।

শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮

কেঁদো না, তোমার জন্যই আমি বিশ্বকাপ জিতবো, তবু কেঁদো না বাবা।

ফুটবলের রাজা বলা হয় তাকে। এছাড়াও অবিশ্বাস্য সব রেকর্ডের জন্য তাকে ‘ব্ল্যাক ডায়মন্ড’ বা ‘কালো মানিক’ বলা হয়। তবে ২০ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে তিনটি ফুটবল বিশ্বকাপের শিরোপা জয় এবং হাজারেরও বেশি গোল করেন সর্বকালের সেরা এই খেলোয়াড়। আর তার এমন হয়ে উঠার পিছনে সবচেয়ে বেশি প্রেরণায় ছিল তার বাবা।

আগামী বিশ্বকাপের আয়োজক রাশিয়ার সংবাদমাধ্যম আরটি’র সঙ্গে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘বাবা আমাদের শহর বাউরুর একজন পেশাদার ফুটবলার ছিলেন। তখন আমি ১০ বছরের বালক। (১৯৫০) ব্রাজিলে বিশ্বকাপের আয়োজন হয়। বাবাকে তখন বললাম, দেখো, ব্রাজিলই বিশ্বকাপ জিতবে। কিন্তু দুঃখজনকভাবে আমরা (মারাকানা স্টেডিয়ামে ফাইনালে উরুগুয়ের কাছে) হেরে গেলাম’

তার এই পরাজয়ে অনেক কেঁদেছিলেন তার বাবা। বলেন, ‘জীবনে প্রথমবারের মতো দেখলাম, বাবা কাঁদছেন। এলাকার বন্ধু ও সহ-খেলোয়াড়দের সঙ্গে নিয়ে বাবা রেডিওতে শুনছিলেন ফাইনালের ধারাভাষ্য, তখন আমাদের টেলিভিশন ছিলো না। আমি বুঝতে পারছিলাম না, বাবা কেন এমন কাঁদছিলেন। তখন তাকে কেবলই বলছিলাম, পুরুষেরা কাঁদে না বাবা। বাবার গলা জড়িয়ে আমি বলেছিলাম, কেঁদো না, তোমার জন্যই আমি বিশ্বকাপ জিতবো, তবু কেঁদো না বাবা। ‘

তারপরেই গড়লেন ইতিহাস। পুরো বিশ্বকে তাক লাগিয়ে ফাইনালে সেই বাবার পুত্রের হ্যাটট্রিকে সুইডেনে(১৯৫৮) অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ জিতে নেয় ব্রাজিল। তখন আপ্লুত হয়ে বাবাকে বলেন, ‘যখন আমরা বিশ্বকাপ জিতে গেলাম, বাইরে বেরিয়ে ছুটে গেলাম বাবার কাছে। বললাম, দেখেছো বাবা, আমরা বিশ্বকাপ জিতে গেছি। ‘

এই বিভাগের আরো খবর


WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com