web stats ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়, হাত নেই তবুও মুখ দিয়ে পাতা উল্টিয়ে শিক্ষকতা!

রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭

ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়, হাত নেই তবুও মুখ দিয়ে পাতা উল্টিয়ে শিক্ষকতা!

‘ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়’- প্রবাদ বাক্যটির বাস্তব রূপ দিয়েছেন এক শিক্ষক। কোনো কিছুই তাকে দমাতে পারেনি। দুই হাত না থাকা সেই স্কুলশিক্ষক মুখ দিয়ে পাতা উল্টিয়ে শিক্ষকতা করছেন!

চীনের ইউনান প্রদেশের ৪১ বছর বয়সী জিয়াং শেংফার হাত নেই। বইয়ের পাতা মুখ দিয়ে উল্টিয়ে চলছেন তিনি। শ্রেণিকক্ষে বোর্ডে লিখতে হলে কাটা হাতের একটি অংশের সঙ্গে বেঁধে নিতে হয় চক। তবুও তিনি দমে যাননি।
এক দশকেরও বেশি সময় ধরে চীনের ইউনান প্রদেশের এক স্কুলে শিক্ষকতা করছেন জিয়াং।

১৯৯৬ সালে এক বৈদুতিক দুর্ঘটনায় দুটি হাতই হারাতে হয় ‘আর্মলেস টিচার’ জিয়াংকে। কিন্তু শিক্ষকতার আদর্শ ও দায়বদ্ধতা থেকে তিনি সরে আসেননি।

হাত হারালেও তার সংগ্রাম থেমে থাকেনি। নতুন করে জীবন সংগ্রামে নেমে পড়েন তিনি। ডান হাতের একটি অংশে চক বেঁধে বোর্ডে লেখেন, পাতা উল্টান মুখ দিয়েই।

চক বাঁধা হাতের লেখায় যেন বোর্ডে মুক্তা ঝড়ে। লেখা ভারো করার জন্য অক্লান্ত ক্যালিগ্রাফির চর্চা করেছেন জিয়াং।

২০১৩ সালে চীনের হেনান প্রদেশে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করার প্রস্তাব পেয়েও ফিরিয়ে দেন জিয়াং। তিনি বলেন, আমি জানি, আমি কোথা থেকে শুরু করেছিলাম। আমি সবথেকে বেশি খুশি হই, যখন স্কুলের বাচ্চাদের সঙ্গে সময় কাটাই।

এই বিভাগের আরো খবর


WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com