web stats পুত্র সন্তান জন্ম দিয়ে ৯ দিন পর চিকিৎসা শেষে পুত্র সন্তানের বদলে কন্যা সন্তান, বিস্তারিত

সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

পুত্র সন্তান জন্ম দিয়ে ৯ দিন পর চিকিৎসা শেষে পুত্র সন্তানের বদলে কন্যা সন্তান, বিস্তারিত

জন্ম নেয়ার ৯ দিন পর চিকিৎসা শেষে পুত্র সন্তানের বদলে কন্যা সন্তান তুলে দেয়া হয়েছে, এমন ঘটনা ঘটেছে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অভিযোগ করেছেন এক দম্পতি। দিনভর আশ্বাসের পরও বদলকৃত বাচ্চা ফেরত না দেয়ায় হাসপাতালে বিক্ষোভ করেছেন স্বজনরা। ঘটনার অনুসন্ধানে তদন্ত কমিটি গঠন ও থানায় মামলার করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নবজাতক ও শিশু ওয়ার্ডে ৯দিন বয়সী এক নবজাতক বদলের অভিযোগ তুলেন অভিভাবক ও স্বজনরা। তারা জানান, গত ১০ডিসেম্বর বিকেলে লেবার ওয়ার্ডে সদর উপজেলার বাদে কলপা গ্রামের পাপিয়া আক্তার একটি ছেলে বাচ্চা প্রসব করেন।

পরে বাচ্চার শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা হওয়ায় তাকে নবজাতক ও শিশু বিভাগে স্থানান্তর করা হয়। স্থানান্তরের পর ইনকিউবেটরে রেখে চিকিৎসা কার্যক্রম চলে। এরপর আজ সোমবার বাচ্চাটিকে ছাড়পত্র নেয়ার সময় দেখা যায় ছেলে বাচ্চার পরিবর্তে একটি মেয়ে বাচ্চা দেয়া হয়েছে। এসময় অভিভাবক ও স্বজনরা অভিযোগ করে বাচ্চা ফেরত চান। পরে বাচ্চা না পেয়ে তারা ওয়ার্ডের সামনে বিক্ষোভ করেন।

বদলকৃত শিশুর বাবা মনোয়ার হোসেন মনু জানান, আমার ছেলেকে আমি রক্ত দিয়েছি। হাসপাতালের সকল কাগজ পত্রে ছেলে জন্মের কথা উল্লেখ রয়েছে কিন্তু আজ ছুটির দিনে আমাকে দেয়া হয়েছে মেয়ে। আমি আমার সন্তান ফেরত চাই। মা পারুল আক্তার বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে আমি আমার সন্তান দ্রুত ফিরত চাই।

মনোয়ারের আত্মীয় বদরুল জানায়, তিন বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। এই বাচ্চাই তাদের প্রথম সন্তান। আমরা আসল বাচ্চাকে দ্রুত মা বাবার কোলে ফিরত চাই।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নবজাতক ও শিশু বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডাঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, কি কারণে বাচ্চা বদল হয়েছে না এর পিছনে অন্য কোনো ঘটনা আছে কিনা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অনুসন্ধানে চেষ্টা চালাচ্ছে।

হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. লক্ষী নারায়ন মজুমদার বলেন, শিশু বদলের ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পাশাপাশি থানায় একটি মামলা দায়ের করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে ।

এই বিভাগের আরো খবর


WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com