web stats ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এরদোগান ঐক্যবদ্ধ করছেন

সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এরদোগান ঐক্যবদ্ধ করছেন

ফিলিস্তিনের পবিত্র নগরী জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্বীকৃতি দেয়ার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ করার প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে তুরস্ক। এর অংশ হিসেবে ফ্রান্স, ইন্দোনেশিয়া ও নাইজেরিয়ার নেতাদের সাথে কথা বলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সাথে আলাপকালে এরদোগান বলেন, জেরুসালেমের স্থিতাবস্থা রক্ষা করা বিশ্বমানবতার দায়িত্ব। এ ক্ষেত্রে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্যদেশগুলোর মনোভাব গুরুত্বপূর্ণ। কেননা একটা ভুল পদক্ষেপের নেতিবাচক প্রভাব পুরো অঞ্চলেই ছড়িয়ে পড়বে।

আলোচনায় দুই নেতা জেরুসালেম ইস্যুতে ঘনিষ্ঠ সহযোগিতার বিষয়ে ঐকমত্যে পৌঁছান। একই দিন তিনি ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো এবং নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদ বুহারির সাথে জেরুসালেম ইস্যুতে কথা বলেন।

বিশ্বনেতাদের সাথে আলোচনায় ১৯৬৭ সালের সীমান্ত অনুযায়ী পূর্ব জেরুসালেমকে রাজধানী করে একটি সার্বভৌম ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ওপর জোর দেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। আগামী ১৩ ডিসেম্বর এ ইস্যুতে তুরস্কে ওআইসির জরুরি সম্মেলনের কথাও উল্লেখ করেন এরদোগান। তিনি বলেন, জেরুসালেম মুসলিম, ইহুদি ও খ্রিষ্টানদের পবিত্র শহর; এ ব্যাপারে মুসলিম উম্মাহ ঐক্যবদ্ধ- এই বার্তা পৌঁছে দেয়ার জন্য এ সম্মেলন গুরুত্বপূর্ণ।

এরদোগান বলেন, ইসরাইল দখলদার রাষ্ট্র। তারা শিশু ও তরুণদের ওপর গুলিবর্ষণ করছে। গাজায় এফ-১৬ যুদ্ধবিমান দিয়ে হামলা চালাচ্ছে। দ্ব্যর্থহীনভাবে বলতে চাই, শক্তিশালী রাষ্ট্র হওয়া মানেই তার অবস্থান সঠিক- এমনটা মনে করার কোনো কারণ নেই। বিশ্বনেতাদের কাজ শান্তি বজায় রাখা, সঙ্ঘাত তৈরি করা নয়।

এর আগে বিষয়টি নিয়ে ক্যাথলিক খ্রিষ্টানদের সর্বোচ্চ ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক ও ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সাথে কথা বলেন এরদোগান। এ ছাড়া লেবানন, কাজাখস্তান, আজারবাইজানের নেতাদের সঙ্গেও বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। চলমান সঙ্কটে তুরস্কের ভূমিকা প্রসঙ্গে এরদোগান বলেন, যদি তুরস্ক দুর্বল হয়ে পড়ে তাহলে ফিলিস্তিন, জেরুসালেম, সিরিয়া ও ইরাক নিজেদের আশাবাদ হারিয়ে ফেলবে। – আনাদোলু

নেতানিয়াহুর পদত্যাগ দাবিতে ইসরাইলে ব্যাপক বিক্ষোভ

দুর্নীতির দায়ে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর পদত্যাগ দাবি করেছেন দেশটির কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী। শনিবার নেতানিয়াহু ও তার সরকারের দুর্নীতির বিরুদ্ধে টানা দ্বিতীয় সপ্তাহের মতো রাজধানী তেল আবিবে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। পুলিশ বলেছে, এ দিন প্রায় ১০ হাজার মানুষ বিক্ষোভে অংশ নেয়।

বিক্ষোভকারীরা দুর্নীতিবিরোধী ও নেতানিয়াহুর পদত্যাগের দাবিসংবলিত বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড বহন করেন। এগুলোতে লেখা ছিল দুর্নীতিকে না বলুন; বাম বা ডান নয়, আমরা সৎ মানুষ চাই; রাজনীতিবিদদের দুর্নীতিতে আমরা ক্লান্ত; দুর্নীতি থামাও; নেতানিয়াহু সরে যাও প্রভৃতি। ইসরাইলে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সচরাচর এত মানুষকে একসাথে রাজপথে নামতে দেখা যায় না।

এক বিবৃতিতে এ বিক্ষোভের ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে নেতানিয়াহুর দল ক্ষমতাসীন লিকুদ পার্টি। বিবৃতিতে বলা হয়, সরকার যখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছ থেকে ঐতিহাসিক স্বীকৃতি আদায় করেছে; সেই মুহূর্তে এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এক দিকে আরব বিশ্বে ইসরাইল ও আমেরিকার পতাকা পুড়িয়ে বিক্ষোভ হচ্ছে; অন্য দিকে তেল আবিবেও বামপন্থীরা মিছিল করছে।

দুর্নীতির অভিযোগে গত নভেম্বরে ষষ্ঠ দফায় সাক্ষ্য দেন নেতানিয়াহু। নিজের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি। তার বিরুদ্ধে এক ধনকুবের ব্যবসায়ীর কাছ থেকে বিশাল অঙ্কের ঘুষ নেয়ার অভিযোগ রয়েছে।- আলজাজিরা ও রয়টার্স

এই বিভাগের আরো খবর


WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com