counter অমুসলিম অপু কোরবানি দিতে চান, শাকিবের কাছে চাইলেন অর্থ

বুধবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অমুসলিম অপু কোরবানি দিতে চান, শাকিবের কাছে চাইলেন অর্থ

বিনোদন ডেস্ক : নিজেকে অমুসলিম দাবি করার পরও আসন্ন কোরবানির ঈদে কোরবানি দিতে চান নায়িকা অপু বিশ্বাস। আর এর জন্য তিনি তার সাবেক স্বামী অভিনেতা শাকিব খানের কাছে অর্থ চেয়েও পাঠিয়েছেন বলে জানিয়েছেন শাকিবের ঘনিষ্ট একটি সূত্র। অপু কোরবানি দেবেন এমন খবর এখন মিডিয়া পাড়ায় চাউর হওয়ায় অনেকের মন্তব্য ‘এই নায়িকা কিছুদিন আগেও বলেছেন, শাকিবতো আমাকে কাগজে কলমে মুসলিম করেননি। তাছাড়া শাকিব যখন আমাকে তালাক দিয়েই দিয়েছেন তখন আমার পরিবার ও সমাজের কারণে আমাকে হিন্দু ধর্মই পালন করতে হচ্ছে। এ ছাড়াও নিজের জীবনটাকে তো আবার নতুন করে সাজাতে হবে। পরিবার থেকে আমার বিয়ের জন্য পাত্র দেখা হচ্ছে। তাই আমি হিন্দু ধর্মবলম্বী এবং আমার নাম অপু বিশ্বাস- এটিই এখন আমার একমাত্র পরিচয়।’

অপুর এমন মন্তব্যের পর তিনি আবার কোরবানির ঈদ কীভাবে করতে চান?-এ প্রশ্ন এখন সবার। মিডিয়ার অনেকের মতে, গত কয়েক ঈদ এবং পূজায় দেখা গেছে ঈদ আসলে অপু এই উৎসব পালনের জন্য তোড়জোড় শুরু করেন, সাবেক স্বামী শাকিবের কাছে টাকা চেয়ে পাঠান। আবার দূর্গা পূজা বা অন্য কোনো পূজা এলে পূজা অর্চনায় ব্যস্ত হয়ে পড়েন। মানে ঈদের সময় অপু মুসলমান আর পূজায় হিন্দু। ধর্ম নিয়ে অপুর এমন দ্বৈত আচরণে হতবাক তার দর্শক ভক্তরাও। ২০১৭ সালের নভেম্বরে কাউকে না জানিয়ে পুত্র জয়কে বাসায় কাজের লোকের কাছে তালাবদ্ধ করে রেখে হঠাৎ কলকাতা চলে যান অপু। তখন জয়কে ঘরে তালাবদ্ধ করে রেখে অপুর এই গোপন যাত্রার খবর পেয়ে বিদেশে শুটিংয়ে থাকা শাকিব পুত্রের জন্য উদ্বিগ্ন হয়ে দেশে ছুটে আসেন। আর অপুর এমন আচরণে ক্ষিপ্ত শাকিব তখনই অপুকে ডিভোর্স দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এ অবস্থায় অপু দ্রুত কলকাতা থেকে ফিরে এসে ওই বছরের ২০ নভেম্বর একটি পত্রিকার কাছে বলেছিলেন, ‘আমাদের পুত্র জয়ের উন্নত ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে শাকিবের সঙ্গে সংসার করতে চাই। আর অভিনয় নয়, নামাজ, রোজা, হজ নিয়মিত আদায় করে স্বামী সন্তান নিয়ে সুখে সংসার করবো।

কিন্ত মনক্ষুন্ন শাকিব অপুর এমন আবদার উড়িয়ে দিয়ে তালাকের পথে হাঁটেন। এদিকে, সম্প্রতি কোরবানির জন্য শাকিবের কাছে অপুর টাকা চাওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে বিষয়টি স্বীকার শাকিব বলেন, এসব বিষয় নিয়ে কোনো কথা বলতে চাই না। এগুলো একেবারেই ব্যক্তিগত ব্যাপার। আমি শুধু বলতে চাই, করোনার কারণে দীর্ঘদিন ঘরে বসে থাকতে গিয়ে আমি এখন খুব বিরক্ত বোধ করছি। তাই পুত্র জয়কে নিয়ে কোরবানির ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে চাই। আমার আশা, ঈদের সময় জয় আমার কাছেই থাকবে।

এই বিভাগের আরো খবর